হিন্দু ধর্মের অনুভূতিতে আঘাত: কাঠগড়ায় অ্যামাজন, বিতর্কে অভিনেত্রী

হিন্দু ধর্মের অনুভূতিতে আঘাত: কাঠগড়ায় অ্যামাজন, বিতর্কে অভিনেত্রী

হিন্দু সম্প্রদায়ের দেবতা শিবকে অপমান করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের আলাদা দুটি ঘটনায় ভারতে অভিযুক্ত হয়েছেন ওয়েব সিরিজ ‘তাণ্ডবের’ নির্মাতারা এবং কলকাতার অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ। বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে জানা গেছে, পরিচালক আলি আব্বাস জাফর অ্যামাজন প্রাইমের জন্য ‘তাণ্ডব’ নামে যে ওয়েব সিরিজটি বানিয়েছেন সেখানে হিন্দু দেবদেবীদের পোশাকে অভিনেতারা কদর্য ভাষায় কথাবার্তা বলেছেন- এ অভিযোগে লখনৌর হজরতগঞ্জ পুলিশ স্টেশনে একটি এফআইআর বা প্রাথমিক অভিযোগ দায়ের করা হয়। হিন্দুস্থান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত দু-দিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে সাইফ আলি খানের সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ওয়েব সিরিজ ‘তাণ্ডব’ বয়কটের ডাক উঠেছে। রোববার রাতে এই ঘটনার জেরে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম আমাজন প্রাইম কর্তৃপক্ষকে তলব করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় তথ্য-সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। এইদিনই সাইফ ও পুরো তাণ্ডব টিমের বিরুদ্ধে ঘাটকুপার থানায় অভিযোগ জমা দিয়েছে বিজেপি নেতা রাম কদম। ‘তাণ্ডব’-এর বিরুদ্ধে হিন্দু দেবতাদের অপমান করা ও হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ভাবাবেগে আঘাত হানার অভিযোগ রয়েছে। এর জেরেই সাইফের বাড়িরনিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। এদিকে বিবিসি আরও জানায়, পশ্চিমবঙ্গে বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা তথাগত রায় ভিন্ন একটি এফআইআরে অভিযোগ এনেছেন, কলকাতার অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের একটি টুইট একজন ‘একনিষ্ঠ শিবভক্ত’ হিসেবে তার ধর্মীয় বিশ্বাসে চরম আঘাত হেনেছে। ২০১৫ সালে করা অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের ওই টুইটে দেখা যায় একটি শিবলিঙ্গের ছবি, যাতে কনডম পরাচ্ছেন এক নারী। ছবিটি থেকে বোঝা যাচ্ছে, ওই নারীকে এইডস সচেতনতার বিজ্ঞাপনের ম্যাসকট ‘বুলাদি’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। গ্রাফিকের ভিতরে লেখা, ‘বুলাদির শিবরাত্রি’। পোস্টের ক্যাপশনে ছিল, ‘এর থেকে বেশি কার্যকরী হতে পারেন না ঈশ্বর।’ এদিকে, পুরনো সেই টুইট নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ার পর সায়নী ঘোষ দাবি করেছেন, তার অজান্তেই এই ‘কদর্য’ টুইটটি তার অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা হয়েছিল এবং তিনি জানতে পারামাত্র সেটি ডিলিট করে দিয়েছিলেন। ইউএইচ/

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন

সর্বশেষ খবর

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com