সুন্দরবনে পর্যটকবাহী নৌযান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা, বিপাকে ব্যবসায়ীরা

সুন্দরবনে পর্যটকবাহী নৌযান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা, বিপাকে ব্যবসায়ীরা

ছবি: সংগৃহীত

খুলনা ব্যুরো:
দেশে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় খুলনা থেকে সুন্দরবন রুটে পর্যটকবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। এদিকে বিআইডব্লিউটিএর এমন নিষেধাজ্ঞায় বিপাকে পরেছেন ট্যুরিজম ব্যবসায়ীরা।
বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) খুলনা নদী বন্দরের বন্দর ও পরিবহন বিভাগের উপপরিচালক মো. আব্দুর রাজ্জাক নিষেধাজ্ঞার তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, গত ১০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিআইডব্লিউটিএ’র প্রধান কার্যালয় থেকে তাকে ওই নির্দেশনা দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। তার আলোকেই তিনি নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন। এতে ভ্রমণ, শিক্ষা সফর, বনভোজন, নৌ-ভ্রমণ ও নৌ-বিহারে পর্যটকবাহী নৌযান ও লঞ্চগুলো চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হলো। আজ বৃহস্পতিবার থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ওই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকবে।
এদিকে, পর্যটন ব্যবসায়ীরা বলছেন, অন্ততপক্ষে কিছুদিন সময় দিয়ে এমন ঘোষণা দেয়া যেতো। কিছু ব্যবসায়ী বলছেন, সুন্দরবন ভ্রমনের ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আরোপ করতে পারতো। ট্যুরিষ্ট অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব সুন্দরবনের সভাপতি নাজমুল আযম ডেভিড ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, অন্য ট্যুরিজম ব্যবসায়ীদের যেখানে বাধ্যবাধকতা দিয়ে ব্যবসা পরিচালনার নির্দেশ দেয়া হয়েছে সেখানে সুন্দরবন ভ্রমণে হঠাৎ নিষেধাজ্ঞা সঠিক হয়নি। আগামী ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ট্যুরিষ্ট বুকিং রয়েছে। তাদের টাকা নিয়ে আয়োজনও শেষ।
উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতির শুরুতে ২০২০ সালের ২৬ মার্চ থেকে সুন্দরবন ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। কিন্তু পরিস্থিতি কিছুটা শিথিল হলে ওই বছরের ১ নভেম্বর থেকে স্বল্প পরিসরে সুন্দরবন ভ্রমণের সুযোগ দেয়া হয়। এর সাড়ে সাত মাস পর ফের করোনা পরিস্থিতির অবনতি হলে ২০২১ সালের ৩ এপ্রিল সুন্দরবনে পর্যটক প্রবেশে ফের নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়। সাড়ে চার মাস বন্ধের পর ২০২১ সালের ১ সেপ্টেম্বর আবারও সুন্দরবন ভ্রমণ শুরু হয়।

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com