যেভাবে বলিউডে আইটেম গান

যেভাবে বলিউডে আইটেম গান

বর্তমানে আইটেম গান বলিউড চলচ্চিত্রে একটা অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে গিয়েছে। যেকোনো সিনেমাকে জনপ্রিয় করার মূলমন্ত্র হিসেবে আইটেম গানকেই সবচাইতে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন পরিচালক-প্রযোজকরা। তবে এই আইটেম গানের শুরুটা কীভাবে?
আইটেম গান ছাড়া বলিউড ছবি এখন অনেকটা লবণ ছাড়া তরকারির মতো। তাই সিনেমার স্বাদ আরও বাড়াতে বলিউডের প্রযোজকরা এখন কোটি কোটি রুপি ব্যয় করে নায়িকাদের দিয়ে আইটেম গান তৈরি করছেন একের পর এক।
তবে এর শুরুটা হয়েছিল ১৯৫৮ সালের ‘হাওড়া ব্রিজ’ সিনেমায় হেলেন এর ‘মেরা নাম চিন চিন চু’ আইটেম গানটিতে নাচের মাধ্যমে। তার এই নাচ দেখে ‘আইটেম কুইন’ তকমা পেয়ে যান খুব সহজেই। এরপর তিনি নেচেছিলেন ‘মনিকা, ও মাই ডার্লিং!’, ‘ইয়ে মেরা দিল’ এবং ‘মেহবুবা ও মেহবুবা’ গানগুলোতে। যা এখনও বলিউডে ইতিহাস। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি হেলেনকে।
এরপর সত্তর-আশি দশকের বলিউড অভিনেত্রী জিনাত আমান, পারভিন ববি ও রেখার মতো অভিনেত্রীরাও অংশ নিলেন আইটেম গানে। সেই থেকে চালু হয়ে গেল আইটেম গানে তারকা অভিনেত্রীদের অংশগ্রহণ। যেমনটা দেখা গিয়েছিল তেজাব সিনেমাতে মাধুরী দীক্ষিতকে ‘এক দো তিন’ গানে, খলনায়ক সিনেমাতে ‘চোলি কে পিছে’ গানে কিংবা মিস্টার ইন্ডিয়া সিনেমাতে শ্রীদেবীকে ‘হাওয়াহাওয়াই’ গানে। তবে হেলেনকে টক্কর দিতে পারলেন না কেউই।
হেলেনের পর বলিউডে মালাইকাই পুরোদস্তুর আইটেম গার্লের তকমা পান। ‘ছাইয়া ছাইয়া’ দিয়ে শুরু করে সবশেষ ‘মুন্নি বাদনাম’ গানে দুর্দান্ত নেচে এ তকমা অর্জন করেছেন অভিনেত্রী। তবে ‘হাউসফুল টু’ সিনেমায় আইটেম গান ‘আনারকলি ডিসকো চালি’তে নেচে কত পারিশ্রমিক নিয়েছেন জানেন? তিনি এ গানে নাচার জন্য নিয়েছেন এক কোটি রুপি।
এরপর অনায়াসে চলে আসে যার নাম তিনি হলেন মল্লিকা শেরাওয়াত। এখন বলিউডের সিনেমাতে তাকে দেখা না গেলেও একসময় নানা বিতর্কিত কাজ করে বেশ আলোচনায় থাকতেন অভিনেত্রী। ‘মাইয়া মাইয়া’ দিয়ে শুরু করে ২০১১ সালে মুক্তি পাওয়া সঞ্জয় দত্ত ও কঙ্গনা রানাউতের ‘ডাবল ধামাল’এ ‘জালেবি বাই’ এর মতো আইটেম সংয়ে এ নেচেছেন তিনি। আর এ গানে নাচার জন্য মল্লিকাও নিয়েছেন এক কোটি রুপি পারিশ্রমিক।
এরপর ২০০৬ সালের ওমকারা সিনেমায় ‘বিড়ি জালাই লে’ গানে নেচে আলোচনায় এসেছিলেন বিপাশা বসু। ২০১২ সালে হিরোইন সিনেমায় ‘হালকাত জওয়ানি’ শিরোনামে আইটেম গানে নেচেছিলেন কারিনা কাপুর খান। একই বছর সালমান খানের ‘দাবাং টু’ সিনেমাতে ‘ফেবিকল’ গানে নেচে আলোচনায় আসেন অভিনেত্রী।
এদিকে, বলিউডের গ্ল্যামার গার্ল ক্যাটরিনা কাইফকে অনেকেই মনে করতেন তিনি ভালো নাচতে পারেন না। তবে সেই ধারাকে ভেঙে তিনি আগনি পাত সিনেমায় ‘চিকনি চামেলি’ গানে দারুণ নেচে আলোচনায় আসেন।
এছাড়াও সঞ্জয় লীলা বানসালির ‘গলিয়ো কি রাসলীলা রাম-লীলা’ সিনেমার ‘রাম চাহে লিলা’ শিরোনামে আইটেম গানে নেচে প্রিয়াঙ্কা আসেন আলোচনায়। এরপর ২০১৪ সালে রাগিনি এম এম এস টুতে ‘বেবি ডল’ গানে নেচেছিলেন সানি লিওন। এরপর আলোচনায় আসেন নোরা ফাতেহি। তবে আইটেম গানে নেচে তিনি অনেক সময় হয়েছেন আলোচিত ও সমালোচিত।
এছাড়া আরও অনেক অভিনেত্রীই আইটেম গানে নাচলেও এখন বর্তমানে যাকে নিয়ে চলছে মিডিয়া পাড়ায় চলছে চর্চা তিনি হলেন সামান্থা রুথ প্রভু। ‘পুষ্পা-দ্য রাইজ’ সিনেমায় ‘ও আন্তাভা’ গানে নেচে মন জয় করেছেন সবার। নিজেকে একটু ভিন্ন আঙ্গিকে নিয়ে এখন অনেক প্রশংসা কুড়াচ্ছেন ভক্তমহলে। ইতোমধ্যে গুঞ্জন উঠেছে করণ জোহর প্রযোজিত ‘লাইগার’ সিনেমায় একটি আইটেম গানে নাচবেন তিনি।
/এডব্লিউ

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন

সর্বশেষ খবর

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com