মেয়রের স্বাক্ষর জাল করে টাকা তুলে নিলো ২২ কর্মচারী

মেয়রের স্বাক্ষর জাল করে টাকা তুলে নিলো ২২ কর্মচারী

ঝালকাঠি পৌরসভার মেয়র মো. লিয়াকত আলী তালুকদারের স্বাক্ষর জাল করে পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীদের প্রভিডেন্ট ফান্ড (ভবিষ্যৎ তহবিল) রূপালী ব্যাংক ঝালকাঠি শাখা থেকে প্রায় ২০ লাখ টাকা উঠিয়ে নেয়ার এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা ধরা পড়েছে। জাল-জালিয়াতির ও আত্মসাতের অভিযোগে ২২ কর্মচারীর বিরুদ্ধে ঝালকাঠি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঝালকাঠি পৌরসভার প্যানেল মেয়র মাহবুবুজ্জামান রাতে এ মামলাটি দায়ের করেন। পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীদের প্রভিডেন্ট ফান্ড (ভবিষ্যৎ তহবিল) নামে রূপালী ব্যাংকে কর্মচারীদের নামে হিসাব রয়েছে। তাতে কর্মচারীদের বেতনের ১০% সহ মোট ২০% টাকা জমা রাখা হয়। চাকরী থেকে অবসর নেয়ার সময় কর্মচারীরা এককালীন এ অর্থ পেয়ে থাকেন। তবে কর্মচারীরা এ তহবিল থেকে অবসরের আগে জরুরী প্রয়োজনে লোন নেয়ার বিধান রয়েছে। উক্ত ব্যাংক হিসাব থেকে টাকা উঠাতে মেয়র ও সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর যৌথ স্বাক্ষর দিতে হয়। গত ২২ নভেম্বর অফিস সহায়ক জাহাঙ্গীর আলম জাল স্বাক্ষর দিয়ে ব্যাংক থেকে টাকা উঠাতে গেলে এ জালিয়াতির ঘটনা ধরা পড়ে। এরপরেই রূপালী ব্যাংক থেকে হিসাব বিবরণী উঠালে বর্তমান মেয়র দায়িত্বের শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট ১২১টি চেকে মেয়রের স্বাক্ষর জাল করে ১৮ লাখ ২১ হাজার ২ শত টাকা ওঠানোর বিষয়টি সামনে আসে। এতে মোট ২২ জন কর্মচারী এক অপরের যোগসাজশে উত্তোলন করে নিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে ২৬ নভেম্বর মেয়রের সভাপতিত্বে এক জরুরী সভায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একইসাথে পৌর প্যানেল মেয়রকে আহবায়ক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্তে জাল জালিয়াতির ঘটনা প্রমাণিত হওয়ায় ২২জন কর্মচারীকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদার জানান, এই ২২ জন কোন আবেদন মেয়র বরাবর করেনি। তারা নিজেরা স্বাক্ষর করে আমার স্বাক্ষর জাল করে টাকা ব্যাংক থেকে উত্তোলন করে। এ ক্ষমার যোগ্য নয়। পৌর সচিব শাহীন সুলতানা বলেন, এ বিষয়ে প্যানেল মেয়র মাহবুবুজ্জামান স্বপনকে আহবায়ক করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তাদের দেয়া প্রতিবেদনে “মেয়রের স্বাক্ষর জাল করার ঘটনা ধরা পড়ায় ২২ জনকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে।

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন

সর্বশেষ খবর

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com