মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা নিয়ে আশুগঞ্জে এমপিকে ‘বিতর্কিত করার অপচেষ্টা’

মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা নিয়ে আশুগঞ্জে এমপিকে ‘বিতর্কিত করার অপচেষ্টা’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের দেয়া একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম ওরফে শিউলি আজাদকে ‘বিতর্কিত করার অপচেষ্টা’ চলছে বলে দাবিকরেছেন তিনি। গত ১৯ ডিসেম্বর বিকেলে জেলার আশুগঞ্জ উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইসলাম প্রধান অতিথি সাংসদ শিউলীর কাছ থেকে ফুল নিচ্ছে একটি ছবি নিয়ে বিভ্রান্ত ছড়ানো হচ্ছে। তাকে বলা হচ্ছে তিনি স্থানীয় ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর। তবে শরীফপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের ডেপুটি কমান্ডার এ.কে.এম ছাদির জানান, তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও যুদ্ধকালীন ডেপুটি কমান্ডার। এখানে রাজনৈতিক পরিচয়ে কোনো মুক্তিযোদ্ধাকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়নি। যাকে নিয়ে অভিযোগ উঠেছে সেই মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইসলাম জানান, কোনো দলের সাথে তার কোনো সম্পর্ক নাই। তার বিরুদ্ধে অপ্রচার চালানো হচ্ছে। এদিকে, অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাংসদ শিউলি আজাদ। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, ‘সংবর্ধনা অনুষ্ঠান নিয়ে ফেসবুকে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। বিষয়টি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে।শরীফপুর ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃপক্ষ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানোয় আমি সেখানে গিয়েছিলাম। বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, অনুষ্ঠানে ৪৩ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে মরণোত্তরসহ ৭৪ জনকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। তাদের মধ্যে কোনো বীর মুক্তিযোদ্ধা কোনো দল করেন কি না, সেটি আমার জানা নেই। এছাড়া আমি কাউকে ব্যক্তিগতভাবে চিনিও না। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে কতিপয় ব্যক্তি সমালোচনা করছেন। যদি কোনো ভুলত্রুটি হয়ে থাকে তাহলে সেটির দায়ভার অনুষ্ঠান কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের। কারণ সংবর্ধিত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও অনুষ্ঠানের আয়োজকরা করেছেন। এটির সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। এছাড়া শরীফপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড ও পৃথক বিবৃতিতে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে একটি চক্র সাংসদ শিউলি আজাদকে বিতর্কিত করার জন্য অপপ্রচার করছে বলে জানিয়েছে। যারা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে বিতর্কিত করার ষড়যন্ত্র করছে- তাদেরচিহ্নিত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার দাবি জানিয়েছে শরীফপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড। ইউএইচ/

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com