ফেনীতে মা-সহ একসঙ্গে জন্মনেয়া ৪ সন্তানই সুস্থ আছে

ফেনীতে মা-সহ একসঙ্গে জন্মনেয়া ৪ সন্তানই সুস্থ আছে

ফেনী প্রতিনিধি:
একসঙ্গে চার সন্তান জন্ম দিয়েছেন গৃহবধূ জান্নাতুল ফেরদৌস। এটি তার প্রথম সন্তান জন্মদান। জান্নাতুল ফেরদৌসের গর্ভে ভূমিষ্ঠ হওয়া চার নবজাতকের মধ্যে দু’টি ছেলে ও দু’টি মেয়ে।
শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে ৪ সন্তান ও মা সুস্থ আছেন। সুস্থতার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাইনী বিশেষজ্ঞ ডা. আবদুল কাইয়ুম। জান্নাতুল ফেরদৌস নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার তরী গরুকাটা হাজারী বাড়ির রাজমিস্ত্রি ফরহাদের স্ত্রী।
এর আগে মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) ফেনীর দেবীপুরে প্রাইভেট হাসপাতাল অ্যান্ড ল্যাপারোস্কোপি ইনস্টিটিউটে একসঙ্গে চার সন্তান জন্ম দেন জান্নাতুল ফেরদৌস। শুক্রবার (২ এপ্রিল) চার সন্তান ও মা সুস্থ অবস্থায় হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরেন।
৩০ মার্চ প্রসববেদনা উঠলে এ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় ওই গৃহবধূকে। সেখানে স্বাভাবিক একসঙ্গে চার সন্তান প্রসব করান গাইনী বিশেষজ্ঞ ডা. আবদুল কাইয়ুম।
ডা. আবদুল কাইয়ুম বলেন, আমার জীবনে এটি প্রথম। একসাথে ৪ সন্তান নরমাল ডেলিভারি। পরিবার ভালোভাবে যত্ন নিতে পারলে চার সন্তান সুস্থ থাকবে। তবে এক সাথে ৪ সন্তান জন্মদানের জন্য কোনো ধরনের সমস্যা হবে না। প্রয়োজনীয় খাবার-দাবারসহ বাড়তি যত্ন নিতে হবে। একসাথে ৪ সন্তান জন্ম দিলে সাধারণত তারা আকারে ছোট হয়। তবে পরিবার অবশ্যই ভালোভাবে যত্ন নিতে হবে।
তিনি আরও বলেন, আগের করা আল্ট্রাসনোগ্রাফির রিপোর্টের আলোকে জান্নাতুল ফেরদৌসের স্বজনরা বলেছিলেন তিন বাচ্চা রয়েছে। কিন্তু আমাদের হাসপাতালে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা যায় তিনি সিভিয়ার একলামশিয়া রোগে ভুগছেন। এরপর একে একে তিন সন্তান প্রসব করেন ওই মা। পর আরও এক সন্তান প্রসব করেন তিনি।
জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, আল্লাহর রহমতে আমি সুস্থ আছি। আল্লাহ আমাকে এ চার সন্তান দান করেছেন। যদি ডা. কাইয়ুম স্যার ডেলিভারি করাতে রাজি না হতেন; তাহলে আমাদের ঢাকা-চট্টগ্রাম যেতে হতো। আমাদের বাড়তি ভোগান্তি পোহাতে হতো।
নবজাতকদের বাবা ফরহাদ বলেন, যেহেতু আল্লাহ আমাকে চার সন্তান দিয়েছে এটা আমার জন্য বিশাল রহমত। চার সন্তানে আমি খুব সন্তুষ্ট। আশা করি চার সন্তান লালন-পালনে কোনো সমস্যা হবে না। আল্লাহ সুস্থ রাখলে পরিবারের সবাই মিলে লালন-পালন করবো।

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন

সর্বশেষ খবর

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com