ফরিদপুরে খালে কুমির; উদ্ধারকারীদের জাল ছিড়ে বেরিয়ে যাচ্ছে বারবার

ফরিদপুরে খালে কুমির; উদ্ধারকারীদের জাল ছিড়ে বেরিয়ে যাচ্ছে বারবার

ফরিদপুরে একটি খালে ঢুকে পড়া কুমির উদ্ধার অভিযান বারবার ভেস্তে যাচ্ছে।

ফরিদপুর প্রতিনিধি:
ফরিদপুর সদরের নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নের ৩৮ দাগ এলাকায় জলিল মোল্লার ডাঙ্গী গ্রামের ফালুর খালে বিরল প্রজাতির মিঠা পানির একটি কুমির আস্তানা গেড়েছে। সেটি উদ্ধারে চালানো অভিযান বারবার ভেস্তে যাচ্ছে।
শুক্রবার (৩০ জুলাই) কুমিরটি উদ্ধারে দ্বিতীয় দফা অভিযান চালনো হয়। বেলা পৌনে ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দীর্ঘ সময়ব্যাপী অভিযান পরিচালনা করেও ধরা সম্ভব হয়নি কুমিরটিকে। তিন দফা জালে আটকা পরলেও প্রতিবারই জাল ছিড়ে বের হয়ে যায় কুমিরটি। অবশেষে সন্ধ্যা ৬টার দিকে এ উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।
গত শনিবার (২৪ জুলাই) সকালে ওই কুমিরটি চর এলাকার একটি জলাধারে প্রথম দেখেন এলাকাবাসী। এরপর থেকে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। ওই এলাকায় মাইকিং করে সর্ব সাধারণকে ওই জলাশয়ে না নামার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, মাছ তাড়া করতে করতে কুমিরটি এই খালে ঢুকে পড়েছে।
নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নের বাসিন্দা আলাউদ্দিন বিশ্বাস (৬২) বলেন, তিনি এক হাজার ৪০০ হাত লম্বা ও ৩২ হাত চওড়া একটি জাল এবং অপর জেলে চানু মোল্লা (৫৪) চার হাজার হাত লম্বা ও ২০ হাত চওড়া এই দুটি জাল দিয়ে বেশ কয়েকবার কুমিরটি ধরার চেষ্টা করেন। বিকেল তিনটা, সাড়ে তিনটা ও পাঁচটার দিকে তিন দফা কুমিরটি জালে আটকা পড়ে, কিন্তু প্রতিবারই জাল ছিড়ে বেরিয়ে যায় সেটি। কুমিরটি ১০ ফুট লম্বা বলে ধারণা করা হলেও এটি এর চেয়ে বড় হতে পারে বলেও জানান তিনি।
এ উদ্ধার অভিযানের প্রধান বন্য প্রাণী সম্প্রসারণ ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের খুলনা অঞ্চলের বিভাগীয় কর্মকর্তা নির্মল কুমার পাল জানান, কুমিরটি বিরল প্রজাতির মিঠাপানির কুমির। এটি বাংলাদেশ থেকে বিলুপ্ত হওয়ার পথে। দ্বিতীয় দফায় উদ্ধার অভিযান সফল না হওয়ায় আপাতত উদ্ধার অভিযান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পনি কমলে এ উদ্ধার অভিযান আবার চালানো হবে।
তিনি আরও বলেন, বর্ষার পানিতে ওই ক্যানেল তলিয়ে গেলে কুমিরটি স্বেচ্ছায় নদীতে বের হয়ে গেল আর উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করার প্রয়োজন হবে না। গ্রামবাসীকে কুমিরটিকে বিরক্ত করতে না বলা হয়েছে। কেননা কুমিরটিকে কেউ বিরক্ত না করলে কুমির কারো অনিষ্ট করবে না।
তবে ওই এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা জানিয়েছেন, দুই দফা ব্যর্থ অভিযানের পর তারা আতঙ্কে আছেন। কখন কি ঘটে যায় তা নিয়ে ভয়ে আছেন তারা। নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোস্তাকুজ্জামান বলেন, কুমিরটির ধরার জন্য গত বুধ ও আজ শুক্রবার দুটি অভিযান ব্যর্থ হয়েছে। ফলে এলাকাবসীর মনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com