পিরোজপুরে মাছবাজারে ঢুকে কোস্টগার্ডের ফাঁকা গুলি, ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক

পিরোজপুরে মাছবাজারে ঢুকে কোস্টগার্ডের ফাঁকা গুলি, ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক

পিরোজপুর প্রতিনিধি:
পিরোজপুরে জাটকা উদ্ধারে গিয়ে মাছ ব্যবসায়ীদের সাথে বিবাদের সময় ফাঁকা গুলি ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে কোস্টগার্ড সদস্যদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় সেখানে আসা মাছ ব্যবসায়ীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
রোববার (১৯ ডিসেম্বর) ভোররাতে সদর উপজেলার বাদুরা মৎস অবতারণ কেন্দ্রে পাইকারী মাছের বাজারে এ ঘটনা ঘটে। তবে কোস্টগার্ড দাবি করেছে, স্থানীয়রা চারদিক থেকে ঘিরে ফেলায় আত্মরক্ষার্থে তারা একটি ফাঁকা গুলি করেছে।
বাদুরা মৎস অবতারণ কেন্দ্রের ব্যবসায়ী মোঃ ইকবাল হোসেন জানান, বঙ্গোপসাগর থেকে ইলিশ মাছ নিয়ে কয়েকটি ট্রলার বন্দরে আসে। এরপর ভোররাতে তারা মাছ বিক্রি শুরু করে। পরবর্তীতে হঠাৎ করে রাত সাড়ে ৩টার দিকে কোস্টগার্ডের দলটি দল সিভিল পোশাকে আড়তে প্রবেশ করে। পরবর্তীতে সেখানে ৬-৭ জন ব্যবসায়ীর ৬৮ পন (প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার) ইলিশ মাছ ঝুড়িতে করে ট্রলারে তুলে নেয়। এরপর ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সময় স্থানীয়রা কোস্টগার্ড সদস্যদের বাঁধা দিলে এক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে এবং ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।
আরও পড়ুন: পটুয়াখালীতে আওয়ামী লী‌গের দুই গ্রু‌পের সংঘর্ষ, সাংবাদিকসহ আহত ১০
ইকবাল হোসেন আরও জানান, বিক্রির জন্য রাখা মাছগুলোর মধ্যে সামান্য কিছু ইলিশ মাছ ছোট ছিল। বড় মাছগুলো রেখে যাওয়ার জন্য অনেক অনুরোধ করার পরও কোস্টগার্ড সদস্যরা এতে কোনো কর্ণপাত করেনি বলে দাবি তার। এ সময় কোস্টগার্ডের সাথে পুলিশ, ম্যাজিস্ট্রেট কিংবা মৎস বিভাগের কেউই উপস্থিত ছিলেন না।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইকবালের পাইকারী মাছের আড়তসহ আরও কয়েকটি আড়তে গভীর রাতে জাটকা ইলিশ বিক্রি হয়। এজন্য সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সেক্টরকে ম্যানেজ করে অবৈধভাবে জাটকা বিক্রির এ কার্যক্রম পরিচালিত হয় এবং সেগুলো দূর-দূরান্তের এলাকায় নিয়ে বিক্রি করা হয়। আর গভীর রাতে জাটকা বেচাকেনা হওয়ায় তা সাধারণ মানুষের নজরে আসে না।
বাদুরা মৎস অবতারণ কেন্দ্রে জাটকা বিরোধী অভিযান পরিচালনার কথা স্বীকার করে কোস্টগার্ডের গোয়েন্দা কর্মকর্তা লেফটেন্যন্ট কমান্ডার এম মামুনুর রহমান জানান, সমুদ্র থেকে অবৈধভাবে আহরিত ১৬ মণ জাটকা বিক্রির সময় সেগুলো বাদুরা মৎস অবতারণ কেন্দ্র থেকে উদ্ধার করে কোস্টগার্ড। এরপর সেগুলো ভান্ডারিয়ার ৬টি এতিমখানায় বিতরণ কর হয়। তার দাবি কোস্টগার্ড সদস্যদের সংখ্যা কম হওয়ায়, জাটকা নিয়ে আসার সময় স্থানীয়রা তাদেরকে ঘিরে ধরে। তখন আত্মরক্ষার্থে কোস্টগার্ড সদস্যরা এক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে।
পিরোজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মোল্লা আজাদ হোসেন জানান, ফাঁকা গুলির একটি ঘটনা ঘটেছে বলে তারা জানতে পেরেছেন। তবে এসব বিষয়ে কোস্টগার্ড বা অন্য কেউ পুলিশকে কিছুই জানায়নি।
জেডআই/

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com