পরিবারে সবাই মারা গেলো, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো শিশুটি!

পরিবারে সবাই মারা গেলো, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো শিশুটি!

মাদারীপুরের শিবচরে পদ্মার পুরাতন কাঁঠালবাড়ি ঘাটের কাছে নোঙর করে রাখা বালুবোঝাই বাল্কহেডে যাত্রীবাহী স্পিডবোটের ধাক্কায় অন্তত ২৬ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ব্যাগ আঁকড়ে থাকা অবস্থায় জীবিত এক শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। দুর্ঘটনায় পরিবারের সবাইকে হারালেও অলৌকিকভাবে বেঁচে গেছে শিশুটি।
শিশুটির নাম মীম। সে একটি মাদরাসার তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী। তার বাবার নাম মনির হোসেন। মাতা হেনা। দুই বোন রুমি ও সুমি। ছোট্ট মেয়েটি ছাড়া পরিবারের সবাই (৪ জন) মারা গেছে এ দুর্ঘটনায়।
শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জানান, তাকে নদীর পাড়ে ব্যাগ আঁকড়ে থাকা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তখন সে থরথর করে কাঁপছিলো। পরে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে ওষুধ ও খাবার খাওয়ানো হয়।
তিনি বলেন, তীব্র জ্বরের কারণে ঘণ্টাখানেক পর মীমের জ্ঞান ফেরে। পরে সে তার বাবা-মা ও দুই বোনকে শনাক্ত করে। তার বাড়ি খুলনার তেরখাদায়। তার বাড়ি খুলনার তেরখাদা। গতকাল তার দাদি মারা যায়। সে খবর পেয়েই আজকে গ্রামে যাচ্ছিল তারা।
ইউএইচ/

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com