নারায়ণগঞ্জে গ্রেফতার পুলিশসহ দুই সহযোগীর ৪ দিনের রিমান্ড

নারায়ণগঞ্জে গ্রেফতার পুলিশসহ দুই সহযোগীর ৪ দিনের রিমান্ড

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থেকে অস্ত্র ও ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার আড়াইহাজার উপজেলার কালাপাহাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক কায়কোবাদ পাঠান এবং তার দুই সহযোগী মাদক ব্যবসায়ীকে চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।
মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ আসামিদের নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিল্টন হোসেনের আদলতে হাজির করে অস্ত্র ও মাদকের দু’টি মামলায় সাতদিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে দুইটি মামলায় প্রত্যেকের দুইদিন করে চারদিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে সোমবার দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে উপজেলার মেঘনা টোলপ্লাজা এলাকা থেকে ২৫ রাউন্ড গুলিসহ দুইটি বিদেশি পিস্তল ও ২শ’ ৪০ বোতল ফেনসিডিলসহ এস আই কায়কোবাদ পাঠান ও তার দুই সহযোগী মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-৩ ব্যাটেলিয়নের একটি দল। পরে র‍্যাব বাদি হয়ে তাদের বিরুদ্ধে সোনারগাঁও থানায় অস্ত্র ও মাদক আইনে পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করলে সেই মামলায় মঙ্গলবার তিন আসামিকে আদালতে প্রেরণ করে থানা পুলিশ।
র‍্যাব-৩ ব্যাটালিয়নের সহকারী সুপার সুপার ও অপারেশন অফিসার ফারজানা হক গণমাধ্যমকে জানান, চট্টগ্রাম থেকে মাদক নিয়ে এক ব্যবসায়ী ঢাকার দিকে আসছে এমন সংবাদ পেয়ে র‍্যাবের একটি টিম সোমবার দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা টোল প্লাজায় অবস্থান নেয়। এসময় সন্দেহভাজন একটি সাদা প্রাইভটেকার টোল প্লাজা অতিক্রম করার সময় থামিয়ে তল্লাশি করা হয়। প্রাইভেট কারের পেছনের সিটে বসা ছিলেন কালাপাহাড়িয়া পুলিশ ফাঁড়ির এস আই কায়কোবাদ ও তার সহযোগী রবিন হোসেন।
প্রাইভেটকারটির চালকের আসনে ছিলেন সোহেল মিয়া। এসময় প্রাইভেট কারের ভেতরে তল্লাশি করে ২শ’ ৪০ বোতল ফেনসিডিল ও এস আই কায়কোবাদের কাছ থেকে ২৫ রাউন্ড গুলিসহ দুইটি বিদেশি পিস্তল জব্দ করা হয়। এ ব্যাপারে র‍্যাবের টিআই মোকলেসুর রহমান বাদি হয়ে এস আই কায়কোবাদসহ তিনজনকে আসামি করে সোনারগাঁ থানায় মাদক ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করেন।
র‍্যাবের একটি সূত্র জানায়, আড়াইহাজারের কালাপাহাড়িয়া পুলিশ ফাঁড়ির সাব-ইন্সপেক্টর (এস আই) কায়কোবাদ দীর্ঘদিন ধরে নদী পরিবেষ্টিত দুর্গম চরাঞ্চল কালাপাহাড়িয়া এলাকাসহ পার্শ্ববর্তী ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লার বাঞ্ছারামপুর, হোমনা ও মেঘনা থানাসহ বিভিন্ন এলাকায় নেটওয়ার্ক গড়ে তুলে মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিলো বলে অভিযোগ রয়েছে।

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন

সর্বশেষ খবর

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com