ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করার ঘটনায় গ্রাম্য মাতবর গ্রেফতার

ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করার ঘটনায় গ্রাম্য মাতবর গ্রেফতার

মাতবর আবু সাঈদ শেখ।
বগুড়া ব্যুরো:
বগুড়ার ধুনট উপজেলায় অপহরণের পর ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করার অভিযোগে গ্রামের স্থানীয় মাতবর আবু সাঈদ শেখকে (৬০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার তাকে ওই এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।
উপজেলার গোপালনগর ইউনিয়নে প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় গত ১৬ জুলাই স্থানীয় বখাটে মাসুদ রানা এবং ইউপি সদস্য ফজলুল হক বাবুর নেতৃত্বে অপহরণ করা হয় সপ্তম শ্রেণির ওই স্কুল ছাত্রীকে। ১২ আগস্ট এই ঘটনায় মামলা করেন অপহৃত ছাত্রীর মা। এক মাস নয় দিন ধরে বিভিন্ন স্থানে আটকে রেখে ধর্ষণের পর অচেতন অবস্থায় পাশের উপজেলার রাস্তার ধারে ওই স্কুল ছাত্রীকে ফেলে যায় আসামিরা। পরে ধর্ষণের ঘটনাটি বারবার মীমাংসার অপেচেষ্টাও চালান স্থানীয় প্রভাবশালীরা।
গ্রাম্য মাতবর পান্না সরকার, আবু সাইদ ও সোলায়মান আলী সালিশ বৈঠক ডেকে ২৮ জুলাই স্কুলছাত্রীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করার ঘোষণা দেয়। আপোষ-মীমাংসার নামে বাদির কাছে থেকে জোর করে সাদা কাগজে স্বাক্ষরও নেন মাতবররা।
ঘটনাটি নিয়ে গেলো শুক্রবার সংবাদ প্রচার করে যমুনা টেলিভিশন। পরদিন মামলার মূল দুই অভিযুক্তের একজন ইউপি সদস্য ফজলুল হক বাবুকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা জানান, ধর্ষণের অভিযোগ মীমাংসার জন্য স্থানীয় মাতবররা সালিশ করেছেন, এমন অভিযোগের পর এই বিষয়েও তদন্ত করছে পুলিশ। তারই প্রেক্ষিতে সোমবার গ্রেফতার করা হয় গ্রাম্য মাতবরদের একজন আবু সাঈদ শেখকে। সালিশের আয়োজন করা মাতবরদেরও এই মামলার আসামি করা হয়েছে বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।
ইউএইচ/

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন

সর্বশেষ খবর

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com