https://ekusheybangla.com/wp-content/themes/e2018/assets/images/news/lazy-load-img.jpg

ধর্মপাশায় বিধিবহির্ভূতভাবে স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক কমিটি ,নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ

মোবারক হোসাইন ধর্মপাশা সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে বিধিবহির্ভূতভাবে ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবক লীগের ধর্মপাশা উপজেলা সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক শাহ আব্দুল বারেক ছোটন ও জামাত বিএনপি পরিবারের লোক হিসেবে পরিচিত সদস্য সচিব তরিকুল ইসলাম পলাশ স্বাক্ষরিত এই ছয়টি আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন।

সংগঠনের নীতিমালা না মেনে ও এখানকার ছয়টি ইউনিয়নে আহ্বায়ক কমিটি থাকার পরও নতুন করে আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়ায় এ নিয়ে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ধর্মপাশা উপজেলা ও ইউনিয়ন কমিটির অন্তত ২০জন নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ধর্মপাশা উপজেলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের ৫১সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী কমিটি ও এখানকার ছয়টি ইউনিয়নে স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক কমিটি রয়েছে। ধর্মপাশা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গত ২মার্চ অনুমোদন দেয় সুনামগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামি ২৭মার্চ। গত শনিবার (২০মার্চ) উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক শাহ আবদুল বারেক ছোটন ও সদস্য সচিব তরিকুল ইসলাম পলাশ এ উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেন। ওই দিনই কমিটি অনুমোদনের তালিকা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করা হয়। এমনটি দেখে উপজেলা ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দেয়।
উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন প্রন্তুতি কমিটির আহ্বায়ক শাহ আবদুল বারেক ছোটন বলেন, সংগঠনের নীতিমালা অনুযায়ী, আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়ার এখতিয়ার আমাদের নেই।কিন্তু সম্মেলন সফল ও গতিশীল করার লক্ষে আমাদের সংগঠনের জেলা কমিটির সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় কমিটির এক নেতার নির্দেশে আমরা এখানকার ছয়টি ইউনিয়নে আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দিয়েছি।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সেলবরষ ইউনিয়ন কমিটির আহ্বায়ক নূর হক কাছা আবু বলেন,আমাদের আহ্বায়ক কমিটি থাকার পরও নতুন করে আহ্বায়ক কমিটি দেওয়া হয়েছে। যা রাজনৈতিকভাবে হঠকারিতা বা স্বেচ্ছাচারিতা ছাড়া আর কিছুই নয়।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এনামুল হক এনাম বলেন,সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব ইউনিয়ন আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়ার এখতিয়ার রাখেন না। জেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এ ধরণের নির্দেশ দিয়ে চরম উদাসীনতা ও দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছেন। তাঁরা বেশ কয়েকজন বিতর্কিত লোকজনদের নিয়ে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটিও গঠন করেছেন। সম্মেলনের নামে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের পকেট কমিটি হলে তা আমরা মেনে নেব না। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সম্মেলন হলেই তবেই আমরা তা মেনে নেব।

সুনামগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো.শোয়েব চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ধর্মপাশা উপজেলায় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটিতে বিতর্কিত কেউ থেকে থাকলে উপযুক্ত প্রমাণসহ কেউ উপস্থাপন করলে সেটি আমরা গুরুত্বের সঙ্গে দেখে ব্যবস্থা নেব। এ উপজেলায় সংগঠনটির শুরু থেকেই কোনো ইউনিয়নেই আহ্বায়ক কমিটি ছিল না। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যে কমিটি ছিল যা প্রায় এক বছর আগে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিলুপ্ত করা হয়েছে। সম্মেলনে সাংগঠনিক ভিত্তিকে মজবুত করার লক্ষে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও সদস্য সচিবকে এখানকার ছয়টি ইউনিয়নে স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে তা অনুমোদন দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি। এতে কেন্দ্রীয় নেতাদেরও মতামত রয়েছে। এতে সংগঠনটির কোনোরকম বিধি লঙ্ঘন করা হয়নি।

  • শেয়ার করুন

সর্বশেষ খবর

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com