দেশের সমুদ্রাঞ্চলে বিশাল গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান পেয়েছে মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স

দেশের সমুদ্রাঞ্চলে বিশাল গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান পেয়েছে মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্যরত পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন।

দেশের সমুদ্রাঞ্চলে ১৭ থেকে ১০৩ ট্রিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস হাইড্রেট বা মিথেন গ্যাসের সন্ধান পেয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স বিভাগ। তবে, সবচেয়ে চমকপ্রদ খবর, বাংলাদেশের জলসীমায় মিলেছে ২২০ প্রজাতির সামুদ্রিক শৈবালের সন্ধান। সামুদ্রিক শৈবালের মধ্যে মাছ ও পশু খাবারের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের কসমেটিক উপাদান রয়েছে।বুধবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এ সুসংবাদ দেয়া হয়। এছাড়া ২শ ২০ প্রজাতির সামুদ্রিক শৈবালের সন্ধান মিলেছে সমুদ্র তলদেশে। যার আনুমানিক বাজার মূল্য ২৮ হাজার কোটি টাকা।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইমস অ্যাফেয়ার্স গত ৩ বছর ধরে জরিপ চালায় বঙ্গোপসাগরে। সেখানেই সন্ধান মিলেছে ১৭ থেকে ১০৩ ট্রিলিয়ন গ্যাস হাইড্রেট বা মিথেন গ্যাসের। বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর উপস্থিতিতে এক সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেন সংশ্লিষ্ট সচিব মো. খোরশেদ আলম। তিনি বলেন, গবেষণা অনুযায়ী আমরা নূনতম ১৭ ও সর্বোচ্চ ১০৩ ঘনফুট গ্যাস ক্ষেত্রের সন্ধান পেয়েছি।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, বাংলাদেশের জলসীমায় মিলেছে ২২০ প্রজাতির সামুদ্রিক শৈবালের সন্ধান। সামুদ্রিক শৈবালের মধ্যে মাছ ও পশু খাবারের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের কসমেটিক উপাদান রয়েছে। আমাদের বিবেচনায়, বাংলাদেশে সিউইড উৎপাদন ও প্রক্রিয়াকরণ পরিবেশবান্ধব পদ্ধতিতে অতি সহজেই করা সম্ভব।
যুক্তরাজ্য ও নেদারল্যান্ডসের সহযোগিতায় চালানো এই গবেষনা ২০১২ সালের সমুদ্র বিজয়ের পরে সবচেয়ে বড় অর্জন বলে মনে করছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, আমরা খুবই আনন্দিত যে দুটি গবেষণাই সফলভাবে সমাপ্ত হয়েছে। সমুদ্রাঞ্চলে গ্যাস হাইড্রেট ও মেরিন জেনেটিক রিসোর্সের বিপুল সম্ভাবনা নিয়ে বিশেষ তদারকি করছে সরকার।/এসএইচ

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com