জামালপুরে মসজিদের ভেতর শিশু ধর্ষণের অপরাধে মাদ্রাসা শিক্ষকের ৮ বছরের কারাদণ্ড

জামালপুরে মসজিদের ভেতর শিশু ধর্ষণের অপরাধে মাদ্রাসা শিক্ষকের ৮ বছরের কারাদণ্ড

প্রতীকী ছবি

জামালপুর প্রতিনিধি:
জামালপুরে মসজিদের ভিতরে শিশুকে ধর্ষণের অপরাধে মাদ্রাসা শিক্ষককে ৮ বছরের সশ্রম কারাদাণ্ড ও অর্থদণ্ড দিয়েছে আদালত।
আজ মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম এই রায় দেন।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, ভুক্তভোগী শিশু জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বাহাদুরাবাদ ভাটিপাড়া গ্রামে নানা-নানির সাথে থাকতো। তার বাবা-মা ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরি করতো। ওই শিশুকে পার্শ্ববর্তী ভাঙ্গারগ্রাম জামে মসজিদে ইসলামিক ফাইন্ডেশন পরিচালিত মসজিদভিত্তিক শিশু শিক্ষালয়ে ভর্তি করা হয়। ২০১৯ সালের ২ অক্টোবর সকালে শিক্ষালয়ের হুজুর মনিরুল ইসলাম সব ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ছুটি দিয়ে ওই শিশুকে মসজিদের ভিতর ধর্ষণ করে।
পরে, ওই শিশুর নানি ছকিনা বেগম বাদী হয়ে মনিরুল ইসলামকে আসামি করে দেওয়ানগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে ১৪ জন স্বাক্ষীর মধ্যে ১০ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যের ভিত্তিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম আসামি মনিরুল ইসলামের উপস্থিতিতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধিত ২০০৩) এর ১০ ধারায় তাকে ৮ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদয়ে আরও ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন।
মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন স্পেশাল পিপি মোহাম্মদ আকরাম হোসেন ও আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মো. রেজাউল আমিন শামীম।
জেডআই/

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com