চোখে বিষাক্ত পদার্থ ছুড়ে টাকার ব্যাগ ছিনতাইয়ের চেষ্টা

চোখে বিষাক্ত পদার্থ ছুড়ে টাকার ব্যাগ ছিনতাইয়ের চেষ্টা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে রাতের অন্ধকারে দোকান থেকে বাসা ফেরার পথে চোখে বিষাক্ত পদার্থ ছুড়ে বিকাশ এজেন্টকে ছিনতাইয়ের চেষ্টা হয়েছে। এতে গুরুতর আহত হয়েছেন শিবগঞ্জ উপজেলার ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়নের কালিনগর-ইংলিশ মোড়ের জালাল উদ্দীনের ছেলে বিকাশ এজেন্ট ইউসুফ আলী (২৬) । স্থানীয় দুই মাদকসেবী এই ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে বলে জানা গেছে। বুধবার (০৬ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়নের কালিনগর-ইংলিশ মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

বর্তমানে চোখের পিড়া নিয়ে শয্যাশায়ী আছেন দোকানদার ও মোবাইল ব্যাংকিং রকেট, বিকাশ, নগদ, উপায়ের এজেন্ট ইউসুফ আলী। জানা যায়, ছিনতাইকারী দুই মাদকসেবী হলো- ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নাইমুল হকের ছেলে পিয়ারুল ইসলাম ও ইংলিশ মোড়-পেসকার পাড়ার আজাহার টোপার ছেলে মো. সাদিকুল ইসলাম।

আহতের পরিবার, স্থানীয় বাসিন্দা ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ইংলিশ মোড়ে মোবাইল ব্যাংকিং ও মুদিখানার দোকান রয়েছে ইউসুফ আলীর। দোকান থেকে তার বাসার দুরত্ব মাত্র একশ গত। বুধবার রাতে দোকান লাগিয়ে বাসায় ফিরছিলেন তিনি। মাঝপথে হঠাৎ করে একজন তার চোখে বিষাক্ত পদার্থ ছুড়ে দেয়। চোখ নিয়ে চিৎকার করতে থাকা ইউসুফের হাতে থাকা টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নিতে চেষ্টা করে আরেকজন। কিন্তু ইউসুফের চিৎকারে বাজারের লোকজন এগিয়ে আসলে পালিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা।

পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাকে বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর চোখে অনেক পানি ঢালা হলেও অবস্থার উন্নতি না হলে আত্মীয়-স্বজনরা তাকে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায়, ইউসুফের চোখে বিষাক্ত পদার্থ ছুড়ে দেয়া হয়েছে। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। স্থানীয়রা অনেকেই এটিকে ফিটকিরি বা এসিড বলে উল্লেখ করছেন।

শুক্রবার (০৮ অক্টোবর) দুপুরে ইউসুফের বাসায় গিয়ে দেখা যায়, দুই চোখ সাদা কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে। ভুক্তভোগী দোকানী ইউসুফ আলী জানান, চোখে এখনও প্রচন্ড জ্বালা-পোড়া রয়েছে। তাকাতে অনেক কষ্ট হচ্ছে। তবে শরীরের আর কোথাও কোন ব্যথা নেই।

ইউসুফের দুলাভাই সিরাজুল ইসলাম বলেন, তার হাতে থাকা ব্যাগে প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা ও মিনিট-এমবি’র কার্ড ছিল। পিয়ারুল বিষাক্ত পদার্থ চোখে ছুড়ে মারে এবং তার সাথে থাকা সাদিকুল টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। ইউসুফকে উদ্ধার করার পর তার চোখে দুই বালতি পানি ঢেলেও জ্বালা-পোড়া কমছিল না। পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চোখের ডাক্তারকে দেখানো হবে বলেও জানান তিনি।

ইউসুফের পাশের দোকানদার মাইনুল ইসলাম জানান, বেশি রাতের ঘটনা নয় এটি। সাড়ে নয়টার দিকে বাজারের বেশিরভাগ দোকানই খোলা থাকে। তারা (ছিনতাইকারীরা) হয়তো ভেবেছিলো, দ্রুত সময়ের মধ্যে চোখে বিষাক্ত পদার্থ ছুড়ে টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাবে। কিন্তু ইউসুফের হাত থেকে ব্যাগ কেড়ে নেয়ার আগেই তার চিৎকার শুনে আমরা এগিয়ে গেলে তারা পালিয়ে যায়।

ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল হোসেন জানান, চোখে বিষাক্ত পদার্থ ছুড়ে ছিনতাই চেষ্টার বিষয়টি শুনেছি। ভুক্তভোগীর পরিবারকে জানিয়েছি, ছেলেটি আগে সুস্থ হোক। এরপর আপনারা চাইলে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ হতে শালিসের মাধ্যমে এর সমাধান করার চেষ্টা করবো।

এদিকে, ঘটনার পর পলাতক রয়েছে পিয়ারুল ইসলাম ও মো. সাদিকুল ইসলাম। পিয়ারুলের ভাই জানান, ইউসুফের পরিবারের সাথে কথা বলে ঘরোয়াভাবে এর সমাধান করার সিধান্ত নেয়া হয়েছে।

এবিষয়ে শিবগঞ্জ থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) ফরিদ হোসেন বলেন, এমন ঘটনার বিষয়ে শুক্রবার (০৮ অক্টোবর) বিকেল পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়াও বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com