খাস কামরায় নারীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ, ম্যাজিস্ট্রেট কনক বড়ুয়াকে ছুটি

খাস কামরায় নারীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ, ম্যাজিস্ট্রেট কনক বড়ুয়াকে ছুটি

মামলা আমলে না নেয়াসহ মামলার বাদী ভুক্তভোগী নারীকে পুলিশি হয়রানীর ভয় দেখিয়ে খাস কামরায় শ্লীলতাহানির অভিযোগে ঢাকার সিএমএম আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট কনক বড়ুয়াকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল ৩-এ বিচারাধীন এক মামলার বাদীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে ছুটিতে পাঠানো হয়। অভিযোগ পত্রে ওই ভুক্তভোগী নারী উল্লেখ করেন যে- গত ১২ জানুয়ারি আদালতে তার স্বাক্ষী প্রদানের তারিখ থাকার কারণে তিনি ও তার পরিবার সিএমএম-৩২ নং কোর্টে উপস্থিত হন। এসময় ম্যাজিস্ট্রেট কনক বড়ুয়া তাকে স্বাক্ষী প্রদানের কথা বলে তার খাস কামরায় নিয়ে যায় এবং কামড়ার দড়জা-জানালা বন্ধ করে দেয়। তারপর মামলার বাদী ও ভুক্তভোগী নারীর দায়ের করা মামলাকে মিথ্যা মামলা উল্লেখ করে সেইসাথে এই মামলা আর কোন আদালত আমলে নিবে না বলেও জানায়। ভুক্তভোগী নারী আরও উল্লেখ করেন- এসময় আঘাতের স্থান দেখানোর জন্য ম্যাজিস্ট্রেট কনক বড়ুয়া তাকে বোরখা খুলতে আদেশ দেন এবং তিনি নিজেই ওই নারীর বোরখা খুলে নেন। তারপর তিনি ওই নারীর স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিতে শুরু করেন। এসময় ওই নারী আপত্তি জানালে কনক বড়ুয়া তাকে বলেন- ‘‘তুমি আমার কথা না শুনলে আমি এই মামলা আমলে নিব না, এবং তোমাকে পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে দিব। আমাকে কেউ কিছু করতে পারবে না।’’ তারপর ভুক্তভোগী নারী দ্রুতই ম্যাজিস্ট্রেটের খাস কামরা ত্যাগ করেন বলে অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেন।

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com