কুমিল্লা নগরীর বর্জ্যে ছয় গ্রামের মানুষের ভোগান্তি | Ekushey Bangla | একুশে বাংলা

কুমিল্লা নগরীর বর্জ্যে ছয় গ্রামের মানুষের ভোগান্তি

কুমিল্লা নগরীর বর্জ্যে ছয় গ্রামের মানুষের ভোগান্তি

কুমিল্লা নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডের ময়লা-আবর্জনা (বর্জ্য) ফেলার স্থান শহরতলির দৌলতপুর-ঝাঁকুনিপাড়া এলাকায় প্রতিদিন অপরিকল্পিতভাবে বর্জ্য ফেলার কারণে অন্তত ছয়টি গ্রামের শিক্ষার্থী ও শিশু-কিশোরসহ নানা বয়সের ২০ সহস্রাধিক মানুষ ছাড়াও যানবাহনের যাত্রী-পথচারীদের অসহনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। প্রতিনিয়ত বাতাসে ময়লার স্তূপ থেকে উত্কট গন্ধ ছড়াচ্ছে। এছাড়া ঐ স্থানে অবাধে গরু-ছাগল ঢুকে বর্জ্যের স্তূপ থেকে দুর্গন্ধযুক্ত উচ্ছিষ্ট খাচ্ছে। বিস্তীর্ণ জায়গা খালি রেখে আবাসিক এলাকার গা ঘেঁষে ময়লা ফেলা হচ্ছে। এছাড়া বর্জ্য ফেলার জায়গার অর্ধেকেরও বেশি অংশজুড়ে তিনটি পুকুরের কারণে স্থানটি সংকুচিত হয়ে পড়েছে। শুক্রবার সকালে ঐ এলাকায় গিয়ে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) সূত্রে জানা যায়, জেলার আদর্শ সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর-ঝাঁকুনিপাড়া গ্রামের ১০ একর জায়গা অধিগ্রহণ করে নগরীর বর্জ্য ফেলার স্থান করা হয়। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ঐ স্থানে কুসিকের ২৭টি ওয়ার্ডের অন্তত ১০০ মেট্রিক টন বর্জ্য ফেলা হয়। বর্জ্য ফেলার জন্য বরাদ্দকৃত ঐ জায়গার পাঁচ একরের মধ্যে তিনটি পুকুর রয়েছে। এগুলো মোতাহের হোসেন নামে এক ব্যক্তির নিকট ইজারা দেওয়া হয়েছে। এসব পুকুরের কারণে বর্জ্য ফেলার স্থান কমে গেছে। এ কারণে পুকুরেরপাড়সহ বাসিন্দাদের বাড়ির আশপাশে ও সড়কের পাশে ময়লা-আবর্জনা স্তূপ করে রাখা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, সেখানে অপরিকল্পিতভাবে বর্জ্য ফেলার কারণে ঝাঁকুনিপাড়া, দৌলতপুর, জগন্নাথপুর, সুয়ারা, বাজগড্ডা, খামারকৃষ্ণপুরসহ আশপাশের কয়েকটি গ্রামে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়া ময়লা ফেলার স্থানের তিন পাশে আংশিক সীমানাপ্রাচীর থাকলেও উত্তর পাশে কোনো সীমানাপ্রাচীর নেই। ফলে আশপাশের অন্তত ছয়টি গ্রামের ২০ সহস্রাধিক মানুষ দুর্গন্ধে নাকাল হচ্ছেন। তাদেরকে প্রতিদিন নাক চেপে ঐ এলাকা পার হতে হয়। ময়লার স্তূপের পাশ দিয়েই কুমিল্লা বিবিরবাজার স্থলবন্দরে যাতায়াতের সড়ক। এতে যানবাহনের যাত্রীসহ এসব এলাকার মানুষকে নিত্যদিন যাতায়াতে ভোগান্তি পোহাতে হয়। এদিকে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও বর্জ্য ফেলার স্থানে অবাধে স্থানীয়দের গরু-ছাগল ঢুকে পড়ে। শুক্রবার সরেজমিন সেখানে গিয়ে দেখা গেছে, বর্জ্য নিয়ে গাড়ি প্রবেশ করার প্রধান ফটকে ‘গরু ও ছাগল ভেতরে প্রবেশ নিষেধ—আদেশক্রমে: কুমিল্লা সিটি করপোরেশন’ এমন লেখা রয়েছে। কিন্তু ঐ প্রবেশপথেই ছয়টি গরু রয়েছে এবং ভেতরে আরো অন্তত ২৭টি গরু-বাছুর দুর্গন্ধযুক্ত ময়লা-আবর্জনার স্তূপ থেকে কুড়িয়ে উচ্ছিষ্ট খাচ্ছে। এছাড়া সেখানে অপরিকল্পিতভাবে ময়লার স্তূপ রাখা হয়েছে। সড়কের পাশেও ময়লা ছড়িয়ে আছে। কথা হয় দৌলতপুর ও ঝাঁকুনিপাড়া গ্রামের বয়োবৃদ্ধ আবদুল বারেক, ময়নাল হোসেন, নুরজাহান বেগমসহ স্থানীয় কমপক্ষে ১৮ জন বাসিন্দার সঙ্গে। ক্ষোভ প্রকাশ করে তারা জানান, ‘বিস্তীর্ণ জায়গা খালি রেখে আবাসিক এলাকার গা ঘেঁষে ময়লা ফেলা হচ্ছে। ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধ বাতাসে চারদিকে ছড়াচ্ছে—এ কারণে বাড়িতে বসবাস করাও দুষ্কর হয়ে পড়েছে। মেহমান বাড়িতে এলে লজ্জায় পড়তে হয়। দূষিত পরিবেশের কারণে এ এলাকায় অনেকে আত্মীয়তাও করতে চায় না। অনেকে মেয়ে বিয়ে দিতে পারছেন না। অনেকে শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়েছে। আমরা এই দুর্ভোগ থেকে মুক্তি চাই।’ তাদের দাবি, ময়লা ফেলার স্থানে পুকুর থাকা ঠিক নয়। সড়কের পাশে ময়লার স্তূপ না করে বিস্তীর্ণ খালি জায়গায় ও পুকুরের মধ্যে ময়লা ফেলা হলে দুর্গন্ধ ছড়াবে না। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) জেলা শাখার সভাপতি ও কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ডা. মোসলেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘অপরিকল্পিতভাবে ময়লা ফেলার কারণে ঐ এলাকার জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে পড়েছে। ময়লা ফেলার স্থান পরিকল্পনা নিয়ে করা হলে পরিবেশের বিপর্যয় হবে না।’ জগন্নাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ বলেন, ‘বর্জ্যের পচা দুর্গন্ধে বাড়িঘরে বসবাস করা বাসিন্দাদের জন্য একেবারে দুষ্কর হয়ে পড়েছে। বাতাসে অন্তত ছয়টি গ্রামে ময়লার অসহনীয় উত্কট গন্ধ ছড়াচ্ছে। আসন্ন কোরবানির ঈদে পশুর বর্জ্যও এখানে ফেলা হবে। তখন অনেকদিন ধরে দুর্গন্ধের মধ্যেই এলাকার মানুষকে বাস করতে হবে। পরিকল্পিতভাবে বর্জ্য ফেলা হলে এমন অবস্থার সৃষ্টি হতো না।’ কুসিক মেয়র মো. মনিরুল হক সাক্কু বলেন, ‘জমি অধিগ্রহণ করে সেখানে শহরের ময়লা ফেলার স্থান করা হয়েছে। বর্জ্যের গন্ধ যেন আশপাশে না ছড়ায় এবং জনস্বাস্থ্যের ক্ষতি না হয় সেজন্য পরিকল্পিতভাবে ঐ স্থানের চারপাশে উঁচু করে মজবুত সীমানাপ্রাচীর নির্মাণসহ এলাকাবাসী ও বিশেষজ্ঞ পরামর্শ নিয়ে সহসাই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’

ফেসবুক মতামত

সর্বশেষ খবর

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com