ওমিক্রন আতঙ্কে বর্ষবরণের সব আয়োজন বাতিল করলো পর্তুগাল

ওমিক্রন আতঙ্কে বর্ষবরণের সব আয়োজন বাতিল করলো পর্তুগাল

ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে পর্তুগালে আতশবাজিসহ বর্ষবরণের সকল ধরনের সরকারী অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে।
মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) দেশটির প্রধানমন্ত্রী অ্যান্তোনিয়ো কস্তা এক ঘোষণায় এবছর খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব ‘বড়দিন’ ও ‘থার্টি ফার্স্ট’ বা ইংরেজি বর্ষবরণ পালনে বাধ্যতামূলক বেশ কিছু বিধিনিষেধ মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন।
সাংবাদিক সম্মেলন থেকে জানা যায়, ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে আগামী ৯ জানুয়ারী পর্যন্ত কিন্ডারগার্ডেন স্কুল বন্ধ থাকবে পর্তুগালে। নিষিদ্ধ করা হয়েছে রাস্তা বা পাবলিক প্লেসে যেকোনো ধরনের অনুষ্ঠান। ১০ জনের বেশি লোক একত্রে জড়ো হওয়ার ওপরও রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। এমনকি পাবলিক প্লেসে অ্যালকোহল গ্রহণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সরকারি এক আদেশে বলা হয়েছে, আগামী ২৫ ডিসেম্বর রাত ১২ টা থেকে যেকোনো সামাজিক অনুষ্ঠান এবং স্পোর্টস ভেন্যুতে ঢুকতে হলে কোভিড নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে ঢুকতে হবে। অন্যদিকে আগামী ডিসেম্বরের ২৪, ২৫, ৩০, ৩১ তারিখে এবং ২০২২ সালের জানুয়ারির ১ তারিখে রেস্টুরেন্টেগুলোতে ঢুকতেও কোভিড নেগেটিভ সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। পরবর্তী ঘোষণা পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে সকল নাইট ক্লাব, ডিসকো ও বার। 
পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রী অ্যান্তোনিয়ো কস্তা আরও বলেন, আমরা এটা ভাবতে পারি না যে বড়দিনের খাবারের টেবিলে বা আনন্দ উদযাপনে ভালোবাসার সাথে ভাইরাসও থাকতে পারে। 
উল্লেখ্য, সম্প্রতি পর্তুগালের জনগণকে কোভিড টেস্টে উৎসাহিত করতে দেশব্যাপী প্রতি মাসে চারটি বিনামূল্যে করোনা টেস্টের পরিবর্তে বিনামূল্যে ছয়টি টেস্ট করার অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

/এসএইচ

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com