ইন্দোনেশিয়ায় পাম চাষে শিশুশ্রম: ঝুঁকির মুখে ৫০ লাখ শিশু

ইন্দোনেশিয়ায় পাম চাষে শিশুশ্রম: ঝুঁকির মুখে ৫০ লাখ শিশু

ইন্দোনেশিয়ায় পাম চাষ শিল্পের কারণে নানা ধরণের ঝুঁকির মুখে পড়েছে দেশটির প্রায় ৫০ লাখ শিশু। পাম বাগানে শ্রমিক হিসেবে ব্যবহারের পাশাপাশি, অন্যান্য কাজে বাধ্য করতে ঘটছে শিশু অপহরণের ঘটনাও। বিষয়টি উদ্বিগ্ন খোদ দেশটির সরকার। বার্তা সংস্থা এপির বিশেষ প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এসব তথ্য। ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রার গহীন এই জঙ্গলের পাম বাগানে কাজ করছে দুই শিশু। পাম সংগ্রহ, বাছাইয়ের মতো কঠিন কাজে করতে ১০/১২ বছরের এসব শিশুদের। শিশু শ্রমিক ইমা জানায়, আমার মা বলেছে স্কুলে যেতে হবে না। পাম বাগানে কাজ করতে হবে। এটা খুবই কষ্টের কাজ। এমনও দিন গেছে, পাম কুড়াতে গিয়ে কাকড়া বিছার কামড় খেয়েছি। খাদ্য, ওষুধসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় নানা পণ্য তৈরিতে ব্যবহৃত হচ্ছে পাম তেল। ফলে, বিশ্বজুড়ে এই তেলের ব্যাপক চাহিদা। সেটি পূরণে ইন্দোনেশিয়ায় বাড়ছে পাম চাষ। তবে শ্রমিক সঙ্কট থাকায় শিশু ও নারীদের এ কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। মানবাধিকার কর্মীরা জানালেন এতে বাড়ছে নারী ও শিশু পাচার। যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার কর্মী রবিন অ্যাভেরব্যাক জানান, বিশ্বজুড়ে পাম চাষ শিল্পে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা বেড়েই চলছে। শুধু তাই নয়, জোরপূর্বক পাম সংগ্রহের কাজে বাধ্য করা এবং এই কাজের জন্য নারী পাচারের ঘটনাও ঘটছে। ইন্দোনেশিয়ার নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রী রাফাইল ওয়ালাংগিতান জানান, পাম চাষে নারী এবং শিশু শ্রমের হার বাড়ছে। এতে নারীর নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য হুমকির মুখে। তেমনি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে শিশুদের স্বাভাবিক বিকাশ। বিষয়টা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। বিশ্বের মোট পামের ৮৫ শতাংশই সংগ্রহ করা হয় ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়া থেকে।

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com