অনিয়ম-দুর্নীতির দায়ে নলডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যানকে অপসারণ

অনিয়ম-দুর্নীতির দায়ে নলডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যানকে অপসারণ

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার ২নং নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম নয়নকে অপসারণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে পরিষদের চেয়ারম্যান পদটি শূন্য ঘোষণা করে গেজেট জারির আদেশ দেয়া হয়। অনিয়ম ও আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে অপসারণের আদেশ দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) বিকেলে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. আবু জাফর রিপন স্বাক্ষরিত এক আদেশে (প্রজ্ঞাপন) এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম নয়নের বিরুদ্ধে ট্যাক্সের টাকা ব্যাংকে জমা না দিয়ে আত্মসাৎ, সদস্যদের অনুপস্থিতি রাতে বিচারকার্য পরিচালনা, স্বাক্ষর জালিয়াতি করে প্রকল্পের টাকা উত্তোলন ও মসজিদ সংস্কারের নামে অর্থ আত্মসাৎ, সেই সাথে প্রতিবন্ধী, বিধবা ও বয়স্ক ভাতার কার্ড দেয়ার প্রলোভনে অর্থ আদায়ের অভিযোগ সরেজমিন তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। এছাড়া পরিষদের সদস্যদের অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ও বিপক্ষে গোপন ব্যালটে মোট ৯ জন সদস্য পক্ষে থাকে, যা দুই তৃতীয়াংশের বেশি ভোট গৃহীত হয়েছে। এ কারণে জনস্বার্থে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন-২০০৯ এর ৩৯ (১৩) ধারা অনুযায়ী তার দায়িত্ব পালন সমীচীন হবে না মর্মে অনাস্থা প্রস্তাবনাটি অনুমোদন হলে তরিকুল ইসলাম নয়ন, ২নং নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। এছাড়া প্রজ্ঞাপনে ২নং নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিদের চেয়ারম্যানের পদ শূন্য ঘোষণা করে গেজেট বিজ্ঞপ্তি জারির নির্দেশ দিয়ে সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) চিঠি পাঠানোর কথাও উল্লেখ করা হয়। তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম নয়ন জানান, মেম্বারদের করা অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই। স্থানীয় তদন্তে তাদের অভিযোগের সত্যতাও মেলেনি। মূলত মেম্বাররা প্রতিপক্ষের ইন্ধনে মিথ্যা ও মনগড়া অভিযোগে নানা ষড়যন্ত্র করছেন। অপসারণের আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করার কথাও জানান তিনি। উল্লেখ্য, নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের ৯ সদস্যরা গত ৮ জুলাই চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম নয়নের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম-দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগসহ জেলা প্রশাসকের কাছে অনাস্থা প্রস্তাব দেয়। জেলা প্রশাসকের নির্দেশে উপজেলা প্রশাসন তদন্ত করে অভিযোগ সত্যতা পেলেও প্রতিবেদন পাঠায়নি স্থানীয় সরকার বিভাগে। পরে তদন্ত প্রতিবেদন চেয়ে জেলা প্রশাসককে পত্র মাধ্যমে নির্দেশ দেয়ার পর গত ১৮ অক্টোবর প্রতিবেদন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। কিন্তু তারপরেও চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এ নিয়ে ইউপি সদস্য ও স্থানীয়রা চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে আসছিলেন। তরিকুল ইসলাম নয়ন নলডাঙ্গা ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক। ইউএইচ/

সুত্রঃ যমুনা টিভি

  • শেয়ার করুন
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com